1. rashidarita21@gmail.com : bastobchitro :
কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার আতংকে বিএনপি-শিবির নেতা-কর্মীরা ॥ ২৭ নেতা-কর্মী গ্রেফতার | Bastob Chitro24
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বিজেপি ৪০০ পার করলে, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভারতের অংশ হয়ে যাবে ডেঙ্গু নিয়ে মিথ্যাচার করছেন মেয়র তাপস: সাঈদ খোকন বাজারভিত্তিক সুদহারে হস্তক্ষেপের ইঙ্গিত বাংলাদেশ ব্যাংকের কুষ্টিয়া জেলা শিল্পকলা একাডেমী কালচারাল অফিসার সুজন রহমানের পারিবারিক সংগঠনের সন্ধান ১৩৯ উপজেলায় দলীয় প্রতীকহীন ভোট আজ সহিত্যিক মীর মোশাররফ স্কুলের প্রাচীর সংস্কার হচ্ছে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে। সরকারি মালিকানাধীন ২৮টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান লোকসানে চলছে হজের ভিসায় নতুন বিধি-নিষেধ জারি গুণী শিক্ষক মোসা. আখতার বানুর অবসজনিত বিদায় অনুষ্ঠান রাজশাহী ইউনিভার্সিটি এক্স স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের ক্যাপ বিতরণ

কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার আতংকে বিএনপি-শিবির নেতা-কর্মীরা ॥ ২৭ নেতা-কর্মী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৯ মে, ২০২২
কুষ্টিয়ায় নাশকতা পরিকল্পনার মামলায় বিএনপি ও ছাত্রশিবিরের ২৭ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৭ মে) বিকেলে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মামলা দুটিতে সবচেয়ে বেশি গ্রেফতার হয়েছে কুষ্টিয়াা মডেল থানা এলাকায়। এখানে কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক পলাশ হোসেনসহ ১৯ নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এছাড়া মিরপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুর রশীদসহ ৬ নেতাকর্মী ও দৌলতপুর থানায় গ্রেফতার করা হয়েছে দু’জনকে। কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছাব্বিরুল আলম বলেন, এসআই সঞ্জয় মন্ডল বৃহস্পতিবার নাশকতা পরিকল্পনায় জড়িত ৩০ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে রাতভর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান, এসআই সুমন চ্যাটার্জির করা মামলায় বিএনপির ৬ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ মামলার বাকি আসামিদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবীদ হাসান জানান, গ্রেফতারকৃত দুইজনকে মিরপুর থানায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। জেলা বিএনপির সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় ঘোষিত ২৬শে মের কর্মসূচী সফল করতে বিভিন্ন থানা থেকে আগত নেতাকর্মীদেরকে পুলিশ বাধা প্রদান এবং ছাত্রলীগের গুন্ডা বাহিনীর হকিষ্ট্রিক, লাটি সোটা ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আমাদের প্রায় ১০জন নেতাকর্মীকে মারধর করে আহত করে। উল্টো পুলিশ বাদি হয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা বানোয়াট ও হয়রানী মূলক মামলা দায়ের করেছে। আমার এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে মিথ্যা মামলার প্রত্যাহারের আহব্বান জানাচ্ছি। নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার প্রসঙ্গে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং নির্যাতনের প্রতিবাদে বিএনপি নেতারা যখন মাঠে নামছে, তখনই আবার নাশকতার মিথ্যা মামলা দিয়ে অযাথা হয়রাণি করা হচ্ছে। এমন অরাজকতা থেকে মুক্তির দাবি জানান তিনি। এদিকে জেলায় এমন গণ গ্রেফতারের ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় বিএনপির অঙ্গসংগঠন ও জামাত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে চলে গেছেন বলে একাধিক সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
প্রযুক্তি সহায়তায়: রিহোস্ট বিডি