ঢাকাশুক্রবার , ২৯ ডিসেম্বর ২০২৩
  1. #সর্বশেষ সংবাদ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. উদ্যোক্তা
  6. কৃষি
  7. ক্যাম্পাস
  8. খেলা
  9. গণমাধ্যম
  10. জাতীয়
  11. দেশজুড়ে
  12. ধর্ম
  13. নারী ও শিশু
  14. পজিটিভ বাংলাদেশ
  15. প্রবাস

কুষ্টিয়ায় নারী উদ্যোক্তাদের কলাপাতায় বনভোজন।

bastobchitro
ডিসেম্বর ২৯, ২০২৩ ৪:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার :

কুষ্টিয়ার সকল নারী উদ্যোক্তা প্রতিনিধি, উদ্যোক্তাবৃন্দ ও তাদের শিশুদের নিয়ে চড়ুইভাতির আয়োজন করা হয়।
মানবিক কাজের কর্ণধার,সফল নারী উদ্যোক্তা, সামাজিক কাজে জয়িতা পুরস্কারপ্রাপ্ত অনার অফ ‘সাবিনা বুটিক হাউস’এর স্বত্বাধিকারী সাবিনা শারমিনের তত্ত্বাবধানে-বাংলার ঐতিহ্য বনভোজন বা চড়ুইভাতির আয়োজন করা হয় ২৭ ডিসেম্বর তার ছাদ বাগানে।।

বনভোজন বা শিশুদের চড়ুইভাতি দিনে দিনে হারিয়ে যাচ্ছে এ৷ ঐতিহ্যকে ধরে রাখার লক্ষ্যে নারী উদ্যোক্তা ও তাদের শিশুদের নিয়ে এ আয়োজন।
-শিশুরা ঘরে বসে গেম এবং মোবাইলের উপর আসক্ত হয়ে পড়েছে,
পরীক্ষা শেষে তাদের কিছুটা বিনোদনের জন্য সাবিনা শারমিন সকল নারী উদ্যোক্তা এবং শিশুদের বিনোদনকে তুলে ধরার জন্য এবং নারী উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন মানবিক সামাজিক কাজে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান করেন।
বনভোজন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ‘আরিফিনস ড্রীম’ এর স্বত্বাধিকারী কুষ্টিয়ার উইমেন্স এন্ড ই কমার্স এর কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি আরেফিন পারভীন লিজা, উপজেলা প্রতিনিধি ‘মাহনুর’ স্বত্বাধিকারী ইসরাত জাহান মিশরী, বাউস উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থার- এডমিন হোসেনে আরা জামান,
অনার অফ ‘মুক্ত বাই এন্ড সেল ‘ মুক্তি আশরাফ, কানিজ ফাতেমা কেয়া, ফিরোজা খানম পান্না, মনীষা ইসলাম,, রাশিদা পারভীন, মায়া,, লাকি,
নারী উদ্যোক্তা অনার অফ ‘কুহি’ কোহিনূর তানভীর,
আরো উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার বিভিন্ন নারী উদ্যোক্তা প্রতিনিধি, উদ্যোক্তাবৃন্দ ও তাদের শিশু সন্তানেরা।
অতিথি হিসেবে ছিলেন – বেগম রোকেয়া জয়িতা পুরস্কার প্রাপ্ত তাসলিমা শিল্পী সহ আরো অনেকে।

নারী উন্নয়নে অসামান্য ভূমিকা রাখায় জয়িতা পুরস্কার প্রাপ্ত সাবিনা শারমিন
মানবিক এবং সামাজিক মানুষ হিসাবে কুষ্টিয়ার উদ্যোক্তা প্লাটফর্মকে আরো উন্নত এবং মানবিক প্ল্যাটফর্ম তৈরী করার জন্য অনুপ্রেরণা যোগান। তিনি মনে করেন সংসার ধর্মের পাশাপাশি মানবিক কাজগুলোতে নারীরা এগিয়ে যেতে পারে।

নারী উন্নয়নে অসামান্য ভূমিকা রাখায় জয়িতা পুরস্কার প্রাপ্ত সাবিনা শারমিন বলেন –
মায়েরা শিশুদের বাড়িতে রেখে হোম ডেলিভারি এবং বিভিন্ন কাজে বাইরে সময় দিতে হয়।
তাদের শিশুদের বিনোদনের জন্য এ উদ্যোগ।
নারীদের নিয়ে তিনি বলেন, ঘর সামলিয়ে, বাচ্চাদের সামলিয়ে, সংসারের হাল ধরার পাশাপাশি নারীরা বিভিন্ন কাজে এগিয়ে চলেছে এবং সংসারে অসামান্য অবদান রাখছেন।
উদ্যোক্তা জীবনের পাশাপাশি তাদের কিছু মানবিক কাজে এগিয়ে যাওয়া সহ মনোবল বাড়াতে হবে।
তিনি আরো বলেন, আমার একটা মহিলা মাদ্রাসা আছে আমি কিছু মেয়েদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করেছি অন্য উদ্যোক্তা নারীরাও শরিক হতে পারে এ লক্ষ্যে মেয়েদের নিয়ে কাজ করতে চান।

মেয়েদের পাশাপাশি শিশুরাও মায়েদের ভালো কাজ দেখে- শিক্ষা নিতে পারে এ আশা ব্যক্ত করেন।

কলার পাতায় পরিবেশন -বাঙালি খাদ্য এবং আনন্দ উল্লাসের মাধ্যমে শিশু ও নারী উদ্যোক্তা মায়েদের বনভোজন শেষ হয়।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।